অর্থনীতি

যার ছোঁয়ায় সিটি ব্যাংকের মুনাফা হাজার কোটি

 

বিশেষ প্রতিনিধি : যার ছোঁয়ায় সিটি ব্যাংকের মুনাফা হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে সেই মাসরুর আরেফিনকে ফের নিয়োগ দিয়েছে ব্যাংক মালিকরা। তাঁর চমক ছিল দেশের প্রথম আমেরিকান এক্সপ্রেস ‘ইসলামিক’ ক্রেডিট এবং ডেবিট কার্ড। এর আগে স্বল্প পরিসরে ইসলামি ব্যাংকিং সেবা দিচ্ছিল সিটি ব্যাংক, যার নাম ছিল ‘সিটি মানারাহ’। পরে নাম ও পরিধি বদলে নতুন ব্র্যান্ডিং করে পূর্ণাঙ্গভাবে শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকিং সেবা দিতে ‘সিটি ইসলামিক’ চালু করে ব্যাংকটি।

সিটি ব্যাংকের ডিজিটাল ব্যাংকিং অ্যাপ সিটিটাচের মাধ্যমেও গ্রাহকরা সিটি ইসলামিকের সেবা নিতে পারছে। এছাড়াও তাঁর ডাইন্যামিক দক্ষতা ও বিচক্ষণতায় বিকাশ অ্যাপ থেকে সিটি ব্যাংক-এর ২০ হাজার টাকা লোন মুহূর্তেই নিতে পারছে মানুষ কোনো জামানত ছাড়াই। এটা একটা বিরাট চমক ব্যাংকিং সেক্টরে। ফলে যোগ্যতার মর্যাদা দিতে কার্পণ্য করেনি সিটি ব্যাংক।

দ্য সিটি ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মাসরুর আরেফিনকে আগামী তিন বছরের জন্য ব্যাংকটির একই পদে পুনর্নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদে তাঁর পুনর্নিয়োগ অনুমোদনের পর বাংলাদেশ ব্যাংক তাতে সম্মতি দিয়েছে। ফলে ২০২৫ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত এমডি ও সিইওর দায়িত্ব পালন করবেন তিনি। আজ মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে ব্যাংকটি।

এতে বলা হয়, মাসরুর আরেফিন ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে সিটি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে যোগ দেন। এরপর গত তিন বছরে তিনি ব্যাংকটিকে ভিন্ন এক উচ্চতায় নিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছেন। এই সময়ে ব্যাংকটির বার্ষিক আয় ৩৫ শতাংশ বেড়ে ২ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে যায়। পাশাপাশি পরিচালন মুনাফা ৬১ শতাংশ বেড়ে ১ হাজার কোটি টাকা মুনাফার ক্লাবে প্রবেশ করে ব্যাংকটি।

এ ছাড়া গত তিন বছর ব্যাংকটির আয় ও ব্যয়ের অনুপাত ৫৯ শতাংশ থেকে কমে ৫০ দশমিক ৫ শতাংশে নেমে আসে। আর বৈদেশিক বাণিজ্য বার্ষিক ৩ হাজার ৬০০ কোটি মার্কিন ডলার থেকে বেড়ে ৬ হাজার ৬০ কোটি ডলারে উন্নীত হয়। তাঁর নেতৃত্বে সিটি ব্যাংক ডিজিটাল ন্যানো লোন এবং প্রথাগত ক্ষুদ্র ও মাইক্রো ফিন্যান্সের সূচনা করেছে।

১৯৯৫ সালে এ এন জেড গ্রিন্ডলেজ ব্যাংকে ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন মাসরুর আরেফিন। তিনি এ এন জেড ব্যাংক মেলবোর্ন, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক কাতার, সিটি ব্যাংক এন এ, আমেরিকান এক্সপ্রেস ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক ও ইস্টার্ন ব্যাংকের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন। ব্যাংকার পরিচয়ের পাশাপাশি তিনি ঔপন্যাসিক, কবি ও অনুবাদক হিসেবেও তাঁর ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে। সর্বশেষ আসন্ন বইমেলায় এবার তাঁর ৪র্থ উপন্যাস ”আড়িয়াল খাঁ” প্রকাশিত হবে কথাপ্রকাশ এর প্যাভিলিয়ন থেকে।

 

 

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button