বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

টিকটকে রাতারাতি মহা স্টার-

 

সারা আলী : টিকটক করে রাতারাতি মহা স্টার বনে গেছেন ক্লো অ্যাডামস। এখন সে জনপ্রিয় শিল্পী। ক্লো অ্যাডামস এর এই জনপ্রিয়তার নেপথ্যে কাজ করেছে টিকটক।শর্ট ভিডিও শেয়ারিংয়ের জনপ্রিয়তম প্ল্যাটফর্ম এখন টিকটক। এটিকে কমবয়সীদের ‘নষ্ট’ করার প্ল্যাটফর্ম বলছেন অনেকে। তবে নীরবে অনেক কিছুর মানচিত্র পাল্টে দিচ্ছে এই সোশ্যাল মিডিয়া। তা হয়তো সাধারণ দর্শকেরা টের পাচ্ছেন না। কিন্তু একটু গভীরভাবে অনুসরণ করলেই বোঝা যাবে, বিশেষ করে সংগীতজগতের খোলনলচে পাল্টে দিচ্ছে টিকটক।
আজকের পত্রিকা অনলাইনের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন

ক্লো অ্যাডামস বিয়ের অনুষ্ঠানে গান গাইতে নিয়মিত আমন্ত্রণ পাইতেন। তাঁর ক্যারিয়ার সেখানেই আটকে ছিল। ক্যারিয়ারটা আরেকটু বিস্তৃত হবে তা কখনো ভাবেননি তিনি। সেই সুযোগ করে দিয়েছে টিকটক। টিকটকের নতুন সংগীত পরিষেবা সাউন্ডঅন-এ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন তিনি।
নতুন পরিষেবাটি নামধামহীন শিল্পীদের গান প্রচারের একটি চমৎকার প্ল্যাটফর্ম হয়ে উঠেছে। সেখান থেকে অর্থ আয়েরও সুযোগ দিয়েছে টিকটক। মাত্র গত সপ্তাহে সাউন্ডঅন অবমুক্ত করেছে টিকটক। এর আগেই টিকটকে ক্লোর ফলোয়ার ছিল ১২ লাখ। নতুন প্ল্যাটফর্মে তাঁর গান এই বিপুলসংখ্যক ফলোয়ারকে ভালোমতোই আকর্ষণ করেছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক হিট গানের মতো তাঁর ‘ডার্টি থটস’ শিরোনামের গানটি রাতারাতি ভাইরাল হয়ে গেছে। এরই মধ্যে গান শোনার জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম স্পটিফাইতেও হলুস্থূল ফেলে দিয়েছে। প্রায় ১ কোটিবার শোনা হয়েছে সেটি।
ইংল্যান্ডের লিসেস্টার শহরে থাকেন ক্লো অ্যাডামস। ২৪ বছর বয়সী এই সংগীতশিল্পী বলেন, টিকটক এখন উদীয়মান শিল্পীদের একমাত্র ভরসাস্থল। ক্লো বলেন, ‘আমি বিয়ের ব্যান্ডে গাইতাম। ব্যান্ডের প্রধান ভোকাল ছিলাম। অ্যাকুস্টিক গিটারও বাজিয়েছি। শত শত বিয়েতে গাওয়ার আমন্ত্রণ পেয়েছি। এখন আমার সারা দিন কাটছে নতুন নতুন গান বানানোর কাজে। নিজের গান প্রকাশের এমন একটি প্ল্যাটফর্ম না পেলে হয়তো আমাকে ব্যান্ডেই থেকে যেতে হতো।’

সাউন্ডঅন আসার আগে ভাইরাল ট্র্যাকের পেছনের শিল্পীদের টিকটক ছেড়ে বিকল্প পথ খুঁজতে হতো। এখন তাঁরা রেসো, অ্যাপল মিউজিক, স্পটিফাই, প্যান্ডোরা, ডিজার এবং টেনসেন্টের জুক্সসহ অন্যান্য সমস্ত স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মে জায়গা করে নিতে নতুন অ্যাপটিকে কাজে লাগাচ্ছেন। তাঁরা এক জায়গায় সবকিছু পাচ্ছেন। সাউন্ডঅন প্রথম বছরে শিল্পীদের শতভাগ এবং পরে ৯০ শতাংশ রয়্যালটি দেবে। ফলে নতুন এবং পাদপ্রদীপের নিচে থাকা শিল্পীদের ক্ষমতায়নে এই প্ল্যাটফর্ম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে ধারণা করা হচ্ছে

 

 

 

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button