লাইফ স্টাইল

লন্ডনে ডা. জাফরুল্লাহ ‘দেশমান্য’ খেতাবে ভূষিত

 

বিশেষ প্রতিনিধি : মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা: জাফরুল্লাহ চৌধুরী লন্ডনে ‘দেশমান্য’ খেতাবে ভূষিত হয়েছেন। ১ লা এপ্রিল, শুক্রবার লন্ডন স্থানীয় সময় রাত ৯ টায় পূর্ব লণ্ডনে মাস হেলথ এওয়ারনেস সেন্টার কর্তৃক লণ্ডন এন্টার প্রাইজ একাডেমীতে ডা: জাফরুল্লাহ চৌধুরীর এ সম্মানে ভূষিত করা হয়। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক নাগরিক সম্বর্ধনা সভা ও সেমিনারে তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে বৃটেনের বাংলাদেশীরা অসামান্য ভূমিকা পালন করেছেন । তারা লাখ লাখ পাউন্ড চাঁদা তুলে মুক্তিযুদ্ধের ফাণ্ডে দিয়েছেন । মুক্তিযোদ্ধাদের অস্ত্র কিনে দিয়েছেন ,শরণার্থীদের কাপড় চোপড় ও ত্রাণ সামগ্রী প্রদান করেছেন ।বাংলাদেশ সরকার তাদের কখনো ভুলতে পারেনা । তিনি জাতীয় সরকারে প্রবাসীদের প্রতিনিধি অন্তর্ভুক্ত করার জোর দাবী জানিয়ে বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে সংকট উত্তরণে জাতীয় সরকার গঠন ও তার অধীনে নির্বাচনের কোনো বিকল্প পথ খোলা নাই।

ডা: জাফরুল্লাহ তাঁর বক্তব্যে বাংলাদেশে চলমান সংকট উত্তরণে জাতীয় সরকার প্রতিষ্ঠার ও তার অধীনে অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজনের দাবী জানান। তিনি মুক্তিযুদ্ধে ও পরবর্তীতে বাংলাদেশের উন্নয়নে প্রবাসীদের ভূমিকার স্বীকৃতি প্রদান ও সকল ক্ষেত্রে তাদের মর্যাদা রক্ষার জোর রাখার আহ্বান জানান। হানাহানি আর দখলদারিত্ব কেউ চায়না। এই সরকার যে অন্যায় করে যে পরিস্থিতি তৈরী করেছে তাতে তাকে বিদায়ের রাস্তা তৈরী করে দিতে হবে। তিনি জাতীয় সরকারে বিএনপি ও আওয়ামীলীগের ২/৩ জন করে নেয়ার পাশাপাশি প্রবাসীদের থেকেও ২/৩ জনকে অন্তর্ভুক্ত করার দাবী জানান। তিনি বলেন, প্রবাসীদের কারণেই আমাদের অর্থনীতি, উন্নয়ন আর সেই তাদের টাকা নিয়েই লুটপাট সবকিছু হচ্ছে। সুতরাং প্রবাসীদের প্রতিনিধি জাতীয় সরকারে থাকতেই হবে। তিনি দেশে দ্রব্য মূল্যের উর্ধগতি,ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন ও গণতান্ত্রিক দুরাবস্থার জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

১ লা এপ্রিল, শুক্রবার লন্ডন স্থানীয় সময় রাত ৯ টায় পূর্ব লণ্ডনে মাস হেলথ এওয়ারনেস সেন্টার কর্তৃক লণ্ডন এন্টার প্রাইজ একাডেমীতে ডা: জাফরুল্লাহ চৌধুরীর সম্মানে আয়োজিত নাগরিক সম্বর্ধনা সভা ও সেমিনারে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন । সংগঠনের চেয়ারম্যান কে এম আবুতাহের চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাপ্তাহিক সুরমা সম্পাদক শামসুল আলম লিটনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবীদ ড.হাসনাত এম হোসেন এমবিই ।অনুষ্ঠানে ‘গণস্বাস্থ্য মডেলে সবার জন্য স্বাস্হ্য সেবা :প্রবাসীদের ভূমিকা ও করনীয় ‘শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয় ।সেমিনারে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামিষ্ট এনাম চৌধুরী । সাপ্তাহিক সুরমা সম্পাদক শামসুল আলম লিটন, বার্তা সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম ফুলের তোড়া ও পত্রিকার বেশ কিছু কপি উপহার দেন । এছাড়া হরপ্পা প্রকাশনীর পক্ষ থেকে পিনাকী ভট্টাচার্যের “সং অব রেসিস্টেন্স ইন ডার্ক টাইমস” বইটি উপহার দেন প্রকাশক আহমেদ ময়েজ।

এসময় বক্তব্য রাখেন -কমিউনিটি নেতা সিরাজুল হক সিরাজ, লণ্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি এমদাদুল হক চৌধুরী, সাংবাদিক শওকত মাহমুদ টিপু ,কাউন্সিলার ফয়জুর রহমান, বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল এসোসিয়েশনের পক্ষে ডা: গিয়াস উদ্দিন আহমদ ,সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন ,প্রবাসী অধিকার পরিষদের সভাপতি জামান আহমদ সিদ্দিকী, সাবেক শিক্ষিকা বেগম হোসনে আরা ,কমিউনিটি নেতা লোকমান উদ্দিন , পিস্ ফর বাংলাদেশের ডলার বিশ্বাস ,মাসুদুর রহমান, জাতীয় ঐক্যজোট ইউকে’র পক্ষে সাইফুর রহমান পারভেজ প্রমুখ । রেনেসাঁ সাহিত্য মজলিসের পক্ষ থেকে শিহাবুজ্জামান কামাল, “নিরাপদ বাংলাদেশ চাই” সংগঠনের প্রেসিডেন্ট মুসলিম খান ও রোখসানা হক তারিন, ফাইট ফর রাইট ইন্টারন্যাশনালের মুহাম্মদ তরিকুল ইসলাম ও আমিনুল ইসলাম, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম ইউকে’র প্রেসিডেন্ট ব্যারিস্টার আব্দুল মজিদ শাহজাহান ও ব্যারিস্টার হামিদুল হক আফিন্দি লিটন, সুনামগঞ্জের পাগলা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র হাসপাতালের পক্ষে বক্তব্য রাখেন মাহবুব রহমান। অনুষ্ঠানে হাসপাতালটির জন্য ফান্ড রাইজ করা হয়। ডা: জাফরুল্লাহর সম্মানে স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করেন কবি ও কলামিষ্ট শিহাবুজ্জামান কামাল।

সভায় বক্তারা -১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ কালীন সময়ে ও বাংলাদেশে স্বাস্হ্য সেবায় ডা: জাফরুল্লাহ চৌধুরীর ঐতিহাসিক ভূমিকার প্রশংসা করেন । বক্তারা বলেন -তিনি জাতির বিবেক, বাক স্বাধীনতা ও গণতন্ত্র রক্ষার আন্দোলনে এক অতন্দ্র প্রহরী ।

 

 

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button