আন্তর্জাতিক

ফিলিস্তিনিদের অধিকার নিয়ে মার্কিন সুপারমডেলের স্ট্যাটাস


আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ফিলিস্তিনিদের ওপর আবারও অত্যাচার শুরু করেছে ইসরায়েলি সেনারা। এ নিয়ে এবার সোচ্চার হয়েছেন আমেরিকান-ফিলিস্তিনি সুপারমডেল বেলা হাদিদ। সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক পোস্ট দিয়ে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন তিনি। একই সঙ্গে পোস্ট সেন্সর করা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম ইন্সটাগ্রামকেও এক হাত নিয়েছেন। গতকাল নিজের ইন্সটাগ্রাম হ্যান্ডেলে দুটি ভিডিও পোস্ট করেন বেলা হাদিদ। সেখানে দেখা যাচ্ছে, ফিলিস্তিনি নাগরিকদের ওপর সন্ত্রাসী কার্যক্রম করছে ইসরায়েলি সেনারা। অনুসারীদেরকে আহŸান জানান ভিডিওগুলো দেখার জন্য। বেলা হাদিদ প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘এই লোকদের মধ্যে কে এ ধরনের আক্রমণকে উস্কে দিয়েছে?’ ইন্সটাগ্রামকে ট্যাগ দিয়ে তিনি বলেন, ‘সাংবাদিকদের মতো আমাকেও যদি আপনারা চুপ করাতে চান, আমি শান্তির বার্তা নিয়ে এগিয়ে আসবো। এবং দেখাবো কীভাবে আইডিএফ (ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী), ইসরায়েলি সরকার এবং অবৈধ বসতি স্থাপনকারীরা কোনো কারণ ছাড়াই নির্দোষ ফিলিস্তিনিদের আক্রমণ করছে। লোকগুলোর অপরাধ তারা ফিলিস্তিনি। এসব সম্পর্কে বাস্তব তথ্য দেখাবো আমি।’ এটিকে মানবাধিকার লঙ্ঘন বলে অভিহিত করেন এই সুপারমডেল। বেলা হাদিদ বলেন, ‘যদি ফিলিস্তিনের পক্ষে আওয়াজ তোলার জন্য সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলো সেন্সর অব্যাহত রাখে, তাহলে তা হবে পক্ষপাত ও অন্যায় সেন্সরশিপের সবচেয়ে বড় রূপ।’ এ সময় অনুসারীদের তিনি মনে করিয়ে দেন যে, শেয়ার করা ভিডিওগুলোর সবই বাস্তব ঘটনা। মার্কিন এই সুপারমডেল বলেন, ‘আমি এই ধরনের সন্তাসী কার্যক্রমের পোস্ট দিতে চাই না। কিন্তু বিশ্বাস করেন ভিডিওর লোকগুলো অভিনেতা নন। তারা সত্যিকারের আইডিএফ সৈন্য এবং ফিলিস্তিনি মানুষ। আপনারা যদি চান আমি কথা বলা বন্ধ করি, তাহলে তাদের (ইসরায়েল) অবশ্যই হত্যা বন্ধ করতে হবে।’

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button