আইন আদালত

প্রথমে ১৩ তারপর ২০ পরে ৬০ কোটি-অতঃপর মামলা-

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থীকে জড়িয়ে মন্তব্যের জেরে নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থা জানিপপের চেয়ারম্যান ড. নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মনিরুল হক চৌধুরীসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন এক যুবলীগ নেতা।

বুধবার চট্টগ্রামের সাইবার ট্রাইব্যুনালে কুমিল্লা শহর যুবলীগের আহবায়ক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ সহিদ এই মামলাটি দায়ের করেন। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা এ মামলায় যুক্তরাজ্যভিত্তিক ইউটিউব চ্যানেল টেবল টক ইউকে’র সঞ্চালক হাসিনা আক্তারকেও আসামি করা হয়েছে। বাদীর আইনজীবী শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী বলেন, চট্টগ্রামের সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক জহিরুল কবীর অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিটকে ১২ জুলাইয়ের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার এজাহারে বাদী অভিযোগ করেছেন, গত ২২ মে ইউটিউব চ্যানেলে প্রচারিত এক আলোচনা অনুষ্ঠানে নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ মন্তব্য করেছেন যে, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আরফানুল হক রিফাত প্রথমে ১৩ কোটি, তারপর ২০ কোটি, তারপর ৬০ কোটি টাকা দিয়ে মনোনয়ন কিনেছেন। মনোনয়ন বোর্ডের প্রধান আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এমন ধরণের বক্তব্য তার জন্য মানহানিকর।

ওই আলোচনায় যুবলীগ নেতা সহিদের নামও মনোনয়ন বাণিজ্যে জড়ানো হয়েছে বলে মামলার এজাহারে অভিযোগ করা হয়েছে। ইউটিউব চ্যানেলে প্রচারিত ওই আলোচনায় তিন আসামি ছাড়াও আরও দু’জন অংশ নিয়েছিলেন বলে জানান তিনি। এ প্রসঙ্গে মামলার বাদী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ সহিদ বলেন, কুমিল্লায় সাইবার ট্রাইব্যুনাল না থাকায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করতে আমি চট্টগ্রামে এসেছি।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button