লিড নিউজ

লাখ লাখ ডলার পাচার করে দিচ্ছে উবার

 

এস রহমান : ডলার পাচার করে দিচ্ছে উবার।অ্যাপভিত্তিক রাইড শেয়ারিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান উবারের ভাড়া পরিশোধের মাধ্যমে ডলার পাচার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ব্যাংকের অনুসন্ধানে মিলেছে উবারের ভাড়া ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে পরিশোধ করলেই দেশের টাকা চলে যাচ্ছে উবারের বিদেশের ব্যাংকে। এ নিয়ে প্রায় তিন বছর আগে নির্দেশনা দিয়েছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। কিন্তু উবার তা বাস্তবায়ন করেনি। বাংলাদেশ ব্যাংক নিশ্চিত হয়েছে, ১০টি ব্যাংকের কার্ড ব্যবহার করে ২০১৯ সালের আগ পর্যন্ত অন্তত আট লাখ ৪১ হাজার ডলার বাইরে চলে গেছে।

এ নিয়ে বড় ধরনের দুর্নীতি রয়েছে বলে প্রতিয়মান হচ্ছে। এ ঘটনায় সঠিক তদন্ত করলে একাধিক ব্যাংকের অবৈধ কর্মকান্ড উদঘাটিত হতে পারে। এদিকে নির্দেশ না মানায় সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংক নতুন করে নির্দেশনা দিয়ে ব্যাংকগুলোকে উবারের ভাড়া কার্ডে পরিশোধ না করার নির্দেশনা দিয়েছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে কোনো কোনো ব্যাংক তাদের কার্ডে উবারের ভাড়া পরিশোধ অপশন বন্ধ করে দিয়েছে। সেই সঙ্গে কিছু ব্যাংক তাদের গ্রাহকদের এসএমএস দিয়ে উবারের ভাড়া কার্ডে পরিশোধ করা থেকে বিরত থাকতে বলেছে।

উবারে নিবন্ধিত গাড়ির ভাড়া ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডে পরিশোধ করলে সরাসরি অর্থ জমা হচ্ছে নেদারল্যান্ডসে উবারের একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে। দেশের কোনো ব্যাংকে উবারের অ্যাকাউন্ট না থাকায় কার্ডের মাধ্যমে এখানে কেউ ভাড়া পরিশোধ করলে বৈদেশিক মুদ্রায় তা চলে যায় তাদের হল্যান্ডে সংগ্রহকারী ব্যাংক অ্যাকাউন্টে। আর এই বিষয়টি উবারকে কয়েক দফা জানানোর পরও তারা এখানে কোনো কালেকটিং অ্যাকাউন্ট খোলেনি বলে জানায় বাংলাদেশ ব্যাংক। বাংলাদেশের বিদ্যমান আইনে অনুমোদন ছাড়া এভাবে অর্থ নেওয়া বেআইনি বলেও জানানো হয়।

এদিকে একটি অভিযোগের ভিত্তিতে বিভিন্ন পর্যায়ে অনুসন্ধান শেষে বাংলাদেশ ব্যাংক নিশ্চিত হয়েছে, ১০টি ব্যাংকের কার্ড ব্যবহার করে ২০১৯ সালের আগ পর্যন্ত অন্তত আট লাখ ৪১ হাজার ডলার বাইরে চলে গেছে। তাই ব্যাংকগুলোকে উবারের ভাড়া কার্ডে পরিশোধ বন্ধ করার নির্দেশনা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।জানা গেছে, এনআরবিসি ব্যাংক তাদের গ্রাহকদের এসএমএস দিয়ে জানিয়েছে, ব্যাংকটির কার্ড ব্যবহার করে বাংলাদেশের ভেতরে উবারের ভাড়া পরিশোধ করা যাবে না।

সংশ্নিষ্ট কর্তৃপক্ষ থেকে এটি কঠোরভাবে নিষিদ্ধ। কার্ড থেকে এ ধরনের অর্থ পরিশোধ হলে কার্ড বাতিল হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমাদের পেমেন্ট ডিপার্টমেন্ট একটা সার্কুলার করেছে যে, কার্ডের মাধ্যমে উবারে বাইরের কোনো পেমেন্ট দেওয়া যাবে না। শুধু লোকাল কার্ডের পেমেন্টই তারা দিতে পারবে।

তিনি বলেন, লোকাল কার্ড বলতে বোঝানো হচ্ছে আমরা দেশে কেনাকাটা করে যে কার্ডের মাধ্যমে পেমেন্টটা দিয়ে থাকি সেটা। আর লোকাল কার্ডের মাধ্যমে পেমেন্ট দিলে বাইরের দেশের উবারের ব্যাংক একাউন্টে টাকা জমা হওয়ার কোনো সুযোগ থাকবে না।

তিনি বলেন, দেশে সেবার বিপরীতে বিদেশে টাকা পরিশোধ নেওয়ার সুযোগ নেই। এ বিষয়ে সতর্ক করে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ব্যাংকগুলো গ্রাহকদের এসএমএস দিয়ে জানিয়েছে।দেশের টাকা বিদেশে উবারের ব্যাংক একাউন্টে কিভাবে জমা হয় এ বিষয়ে সিরাজুল ইসলাম বলেন, পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে ইন্টারন্যশনালি এই কার্ডগুলো ইন্টারন্যশনাল পর্যায়ে হিট করে। ক্রেডিট কার্ডে ফরেইন কান্ট্রি কারেন্সি এবং লোকাল কান্ট্রি কারেন্সি দুটোই থাকে।

সেই ক্ষেত্রে আপনি যদি বিদেশে কোনো একটি হোটেল বুক করেন সেটাও এই কার্ডের মাধ্যমে করা যায়। এই পদ্ধতিতেই তারা উবারের এই বিলটা পেমেন্ট করতেন। আর এই কারণে যেহেতু উবারের দেশে কোনো ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নাই, তাই দেশের টাকা বিদেশে উবারের অ্যাকাউন্টে জমা হতো।এর আগে উবারের এই বিষয়টি নজরে এলে ২০১৯ সালের নভেম্বরে এই ধরনের সবকিছুর বিল পরিশোধে ক্ষেত্রে সতর্ক করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এক সার্কুলার জারি করে এ ধরনের পরিশোধে নিষেধ করা হয়।

নিষেধাজ্ঞায় বলা হয়, বাংলাদেশে উৎপাদিত বা উদ্ভূত পণ্য বা সেবামূল্য দেশের বাইরে পরিশোধ করা যাবে না। শুধু বিদেশি নির্ভরযোগ্য উৎস থেকে ডাউনলোডযোগ্য অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার, ই-বুক, ম্যাগাজিন সাবস্ট্ক্রিপশন ইত্যাদির ফি, ক্লাউড বেইজড সলিউশন্স, ডোমেইন-হোস্টিংসহ বিদেশি সেবার অর্থ আন্তর্জাতিক কার্ডের মাধ্যমে পরিশোধ করা যায়। একই সঙ্গে একক লেনদেনে ৩০০ ডলার সমপরিমাণ পরিশোধের সুযোগ দেওয়া হয়। এ নির্দেশনার আগ পর্যন্ত একক লেনদেনে সর্বোচ্চ ১০০ ডলার পরিশোধ করা যেত।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button