সড়ক যোগাযোগ

মেট্রোরেল উদ্বোধন ডিসেম্বরে-উত্তরা টু কমলাপুর ভাড়া ১০০ টাকা

উত্তরা প্রতিনিধি : উত্তরার ডিয়াবাড়ীতে মেট্রোরেল প্রদর্শনী ও তথ্যকেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন করে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, মেট্রোরেলের এমআরটি লাইন-৬-এ প্রতি কিলোমিটার ভাড়া ৫ টাকা, সর্বনিম্ন ভাড়া ২০ টাকা এবং উত্তরা থেকে কমলাপুর পর্যন্ত ভাড়া ১০০ টাকা। যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাড়া মওকুফ। মাসিক, সাপ্তাহিক, পারিবারিক ভাড়ার কার্ডে ভাড়ায় বিশেষ সুবিধা থাকবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।উত্তরার ডিয়াবাড়ীতে মেট্রোরেল প্রদর্শনী ও তথ্যকেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন শেষে আজ মঙ্গলবার দুপুরে এসব তথ্য জানান তিনি।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, এই প্রজেক্টের এমআরটি লাইন-৬-এর কাজ ৯৪ শতাংশ সমাপ্ত হয়েছে। অত্যাধুনিক গণপরিবহন হিসেবে শেখ হাসিনার সরকার আগামী ডিসেম্বর মাসে প্রথম উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত চালু করা হবে। আমাদের বিজয়ের মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেট্রোরেলের এমআরটি লাইন-৬-এর শুভ উদ্বোধন করবেন। সেই প্রত্যাশায় বাকি কাজ করা হচ্ছে।
সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তিরা প্রতিবার ভ্রমণে বিশেষ সুবিধা পাবেন। শিক্ষার্থীদের সুবিধার বিষয়টি পরে জানানো হবে। শিক্ষার্থীরা বিনা টিকিটে মেট্রোরেল প্রদর্শনী ও তথ্যকেন্দ্র ঘুরে দেখতে পারবে।ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘পরের বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে এমআরটি লাইন-৬-এর মতিঝিল পর্যন্ত কাজ শেষ করতে পারব। এই সরকারের আমলেই শেষ হবে।

কাদের বলেন, ‘এমআরটি লাইন-১ কমলাপুর টু ঢাকা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পর্যন্ত ৩১ কিলোমিটারের মধ্যে হবে ২১ কিলোমিটার পর্যন্ত পাতাল রেল এবং ১০ কিলোমিটার হবে এলিভেটেড লাইন। এরপর এমআরটি লাইন-৫, এমআরটি লাইন-২, এমআরটি লাইন-৪সহ মোট ছয়টি লাইন ২০৩০ সালের মধ্যে শেষ করার টার্গেট রয়েছে। ঢাকা মেগাসিটিতে ২ কোটি লোক। তরুণ প্রজন্ম আজ স্বপ্ন দেখছে। সেই স্বপ্ন আমরা বাস্তবে রূপান্তর করব। সেই আশাবাদ আমরা ব্যক্ত করছি।’

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আপনারা জানেন, এখানে বিশাল কর্মযজ্ঞ চলছে। এর ব্যাপ্তি অনেক দূর এগিয়ে গেছে। আমরা যখন প্রথম এসেছি, তখন দাঁড়াবার মতো জায়গা ছিল না। হঠাৎ করে ঝড় এল। ঝড়ের সঙ্গে বৃষ্টিও হয়। সম্পূর্ণ প্রোগ্রাম আমরা ঝড়-বৃষ্টির মধ্যেই করেছি। এসব সুন্দর সুন্দর অবকাঠামো, বিল্ডিং তখন ছিল না। এখন এটি একটি মেট্রো নগরী। এটি আমাদের সৌভাগ্য।’

এ সময় বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতি নাওকি, বাংলাদেশে জাইকার প্রধান রিপ্রেজেনটেটিভ ইহুও হায়েকাও, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী, ডিএমটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন ছিদ্দিকসহ মেট্রোরেলের অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button