বিশেষ প্রতিবেদন

সংবিধান লঙ্ঘন করে ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধে রিট

কোর্ট রিপোর্টার : কথিত সংবিধান লঙ্ঘন করে ভারতে ইলিশ রপ্তানি হচ্ছে বলে তা বন্ধে রিট করেছেন এক আইনজীবী। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশের বাজারমূল্যের চেয়ে প্রায় অর্ধেক দামে ভারতে ইলিশ রপ্তানি হচ্ছে। এর মাধ্যমে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টরা সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন।শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে ২ হাজার ৪৫০ টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে সরকারশারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে ২ হাজার ৪৫০ টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে সরকার। আজ মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মাহমুদুল হাসান হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এই রিট করেন।

রিটে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বেসরকারি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব, রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান, আমদানি ও রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দপ্তর এবং বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যানকে বিবাদী করা হয়েছে। ভারতে কম দামে ইলিশ রপ্তানি বন্ধে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা অবৈধ ঘোষণা চাওয়া হয়েছে রিটে। সেই সঙ্গে ভারতে ইলিশ মাছ স্থায়ীভাবে বন্ধের নির্দেশনাও চাওয়া হয়েছে আবেদনে।

আবেদনে বলা হয়, ইলিশ বাংলাদেশের জাতীয় মাছ হওয়া সত্ত্বেও অত্যধিক দামের কারণে এই দেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠী তা কেনার কথা চিন্তাও করতে পারে না। অন্যদিকে দেশের মধ্যবিত্ত জনগণও এই ইলিশ কিনতে হিমশিম খাচ্ছে। অথচ বাংলাদেশের বাজারমূল্যের চেয়ে প্রায় অর্ধেক দামে ভারতে ইলিশ রপ্তানি হচ্ছে।আবেদনে আরও বলা হয়, দেশের বাজারের চেয়ে কম দামে ভারতে ইলিশ রপ্তানি করার মাধ্যমে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টরা সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন। তাঁরা দেশের মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা ধ্বংস করেছেন এবং জনগণের স্বার্থবিরোধী কাজ করেছেন। এছাড়া রপ্তানি নীতি ২০২১-২৪ অনুযায়ী ইলিশ মাছ মুক্তভাবে রপ্তানি যোগ্য নয়। তাই এই ইলিশ মাছ স্থায়ীভাবে রপ্তানি বন্ধের নির্দেশ চাওয়া হয়েছে আবেদনে।

এর আগে ১১ সেপ্টেম্বর সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের ইলিশ রপ্তানি বন্ধে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়। তবে ওই নোটিশের জবাব না পেয়ে রিট করা হয়েছে বলে জানান আইনজীবী মাহমুদুল হাসান। শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে ২ হাজার ৪৫০ টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। যার প্রথম চালানে ৫ সেপ্টেম্বর বেনাপোল বন্দর দিয়ে দুই ট্রাকে ৮ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে প্রবেশ করেছে। প্রতি কেজি ইলিশের রপ্তানিমূল্য ১০ ডলার নির্ধারণ করা হয়েছে। দুই দেশেই শুল্কমুক্ত সুবিধায় এ ইলিশ ভারতে রপ্তানি করা হয়। এ ইলিশ ভারতে রপ্তানির জন্য বাংলাদেশি ৪৯টি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান অনুমোদন পেয়েছে।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button