জাতীয়রাজনীতি

সাজাপ্রাপ্ত তারেকদের সমালোচনা মানায় না: শেখ হাসিনা-নজর কেড়েছে সম্রাটের লালবাহিনী

 

বিশেষ প্রতিনিধি : যুব মহাসমাবেশে জনসমুদ্রে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বিএনপির অনেক নেতা মানি লন্ডারিং, লুটপাট, দুর্নীতির কথা বলে। তারেক জিয়ার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের এফবিআই এসে সাক্ষ্য দিয়ে গেছে। মানি লন্ডারিং মামলায় সে সাত বছরের সাজাপ্রাপ্ত। অস্ত্র মামলার আসামি। তাদের মুখে এই সমালোচনা মানায় না।তিনি বলেন, স্বাধীনতা পর বঙ্গবন্ধু যখন দেশ গড়ার কাজে হাত দেন, তখন এক টাকাও রিজার্ভ ছিল না। কিন্তু তিনি দেশকে এগিয়ে নিয়ে যান।

২১ বছর পর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর বাংলাদেশকে আবার উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যাই। বাংলাদেশকে এখন কেউ অবহেলার চোখে দেখে না। আজ শুক্রবার (১১ নভেম্বর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে যুবলীগের সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন। যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়ে। সমাবেশে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলও বক্তব্য রাখেন।

ওদিকে যুবলীগের যুব মহাসমাবেশ যুব সম্রাটের লালবাহিনী নজর কেড়েছে সবার। সম্রাট এর আগের দিনের ঘোষণা মত ৬০ হাজার লাল গেঞ্জি’র লাল বাহিনীর উপস্থিতি সবার চোখে পড়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন জেলা ও থানা থেকে এসেছিল রং বেরঙ্গের গেঞ্জি পরিহিত নেতা কর্মীরা।কিন্তু সম্রাটের লালবাহিনীর পদচারনা ছিল সর্বাগ্রে। কর্মসূচি উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার বিকালে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানকে ঘিরে সম্রাটের লাল কর্মী বাহিনী কে কোথায় দায়িত্ব পালন করবে তা সরেজমিনে তদারকি করেন সম্রাট।

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে যুবলীগের ওয়েবসাইট ও মোবাইল অ্যাপ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় তিনি যুবলীগের তথ্যপ্রযুক্তির সংযোজন দেখে প্রশংসা করেন। পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও সব অঙ্গ সংগঠনের জন্য অ্যাপস তৈরির নির্দেশ দেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মঞ্চে ওয়েবসাইট ও মোবাইল অ্যাপ সম্পর্কে অবহিত করেন যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক শামসুল আলম খান অনিক, উপ-তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এন আই আহমেদ সৈকত, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য নিয়াজ মোর্শেদ এলিট।

যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেন, বিএনপির সময় বাংলাদেশকে বলা হতো ‘ব্রিডিং গ্রাউন্ড অব টেরোরিজম’। সেখান থেকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশকে এখন বলা হচ্ছে ‘নেক্সট এশিয়ান টাইগার’। উন্নয়নের পুরোটাই নেতৃত্বের দূরদর্শিতার ওপর নির্ভর করে। জননেত্রী শেখ হাসিনার বাংলাদেশ এখন বিশ্বনেতাদের চোখে উন্নয়নের মডেল।

সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে সারা দেশে থেকে আসা সংগঠনটির নেতা, কর্মী, সমর্থক, শুভাকাঙ্ক্ষী- নিজ নিজ ইউনিটের পছন্দ ও মনোনিত রঙের টি-শার্ট ও ক্যাপ পরে হাজির হন। কোনো ইউনিট লাল রঙের টি শার্ট ও ক্যাপ, কোনো ইউনিট সবুজ, কোনো ইউনিট কমলা, কোনো ইউনিট হলুদ, কোনো ইউনিট নীল বা বেগুনি রঙ পরে পুরো আয়োজনকে রংধনু রঙে রাঙিয়ে দিয়েছে। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের নেতাকর্মীরা লাল টি-শার্ট ও টুপি পরেছেন। ঢাকা উত্তর যুবলীগের নেতাকর্মীদের মাথায় সবুজ টুপি ও হাতে দলীয় পতাকা। নোয়াখালী জেলা যুবলীগের লাল টি-শার্ট ও টুপি এবং পূর্বধলা থেকে আসা নেতাকর্মীরা হলুদ টি-শার্ট ও টুপি পরেছেন। সন্দ্বীপ উপজেলা যুবলীগের নেতাকর্মীরা অংশ নিয়েছেন কমলা রঙের টি-শার্ট ও টুপি পরে।

উজ্জীবিত যুবলীগ নেতাকর্মীরা জানান, দুর্দিনের মাঠের ত্যাগী ও পরীক্ষিত কর্মী হয়ে তৃণমূলকে চাঙা করে আগেও আওয়ামী লীগের পাশে ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট। শুধু তাই নয়, আওয়ামী লীগের ‘ঢাকা মহানগরীর’ অন্যতম স্তম্ভ ছিলেন। যুবলীগের সাংগঠিক সম্পাদক মোহাম্মদ মাকসুদুর রহমান বলেন, পরীক্ষিত যুবনেতা সম্রাট ভাই। সকল ঝড়-ঝঞ্ঝা পেরিয়ে সম্রাট ভাই সবসময় দলীয় আদর্শ সমুন্নত রেখে নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ রেখেছেন। তাই আবারও রাজপথ কাঁপবে সম্রাট ভাইয়ের পদচারণায়।

মহাসমাবেশে ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটের ঘনিষ্ট সহকর্মী ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণ এর সহ সভাপতি সোহরাব হোসেন স্বপন,সহ সভাপতি সরোয়ার হোসেন মনা, সহ সভাপতি হারুনুর রশিদ, সহ সভাপতি নাজমুল হোসেন টুটুল, সহ সভাপতি কামাল উদ্দিন খান, সহ সভাপতি আলী আকবর বাবুল, সহ সভাপতি মহসিন মাহমুদ, সহ সভাপতি মজিব মহসিন পিয়াস, সহ সভাপতি মুরসালিন আহমেদ, সহ সভাপতি খোরশেদ আলম মাসুদ,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাফর আহমেদ রানা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক, সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বকুল, সাংগঠিক সম্পাদক মোহাম্মদ মাকসুদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী ইব্রাহীম খলিল মারুফ, আইন সম্পাদক এ্যাড. শাহনাজ পারভীন হীরা, শিল্প ও বানিজ্য সম্পাদক ওমর শরীফ পলাশ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আশিকুর রহমান নাদিম, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম আকতার, মুক্তিযুদ্ধ সম্পাদক গোফরান গাজী, ধর্ম সম্পাদক আবুল কাশেম খাঁ সহ মহানগর যুবলীগের নেতৃবৃন্দ’র উপস্থিতি দেখা গেছে।

 

 

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button